Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

চিকিৎসাধীন মহিলার শ্লীলতাহানি, বর্ধমানে বেধড়ক মার নার্সিংহোমের কর্মীকে

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

রাতে বুক ধড়ফড় করছিল নার্সিংহোমে চিকিৎসাধীন এক মহিলার। সেই সময় নার্সিংহোমের এক কর্মীর সাহায্য চাওয়ায় সে স্টেথোস্কোপ নিয়ে পরীক্ষা করার অজুহাতে মহিলার শ্লীলতাহানি করে বলে অভিযোগ। ঘটনাটি ঘটেছে বর্ধমানের বোরহাট এলাকার স্কাইলার্ক নার্সিংহোমে। অভিযুক্তের নাম বাপ্পা সরকার। সে দোষ স্বীকার পরেই তাঁকে বেধড়ক মারধর করে রোগীর বাড়ির লোকজন। এরপর পুলিশ এসে বাপ্পাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। অভিযুক্ত বাপ্পা সরকারের চরম শাস্তির দাবি করেছে রোগীর পরিবার সহ নার্সিংহোম সংলগ্ন এলাকার মানুষজন।

জানা গেছে, গত বুধবার শ্বাসকষ্ট নিয়ে পূর্ব বর্ধমানের আউসগ্রাম থানার অভিরামপুরের বাসিন্দা এক মহিলা বর্ধমান শহরের বোরহাট এলাকার স্কাইলার্ক নার্সিংহোমে ভর্তি হন। সে রাতেই ঘটনাটি ঘটে। ভয়ে মহিলা বৃহস্পতিবার অসুস্থ অবস্থাতেই ছুটি নিয়ে বাড়িতে চলে যায়। ঘটনাটি বাড়ির লোকজনকে জানাতেই শুক্রবার সকালে বাড়ির লোকজন এসে অভিযুক্ত বাপ্পা সরকারকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। কিন্তু বাপ্পা প্রথমে কোনোভাবেই স্বীকার করে না। কিন্তু কিছুক্ষণ পরেই চাপ দেওয়ায় সে স্বীকার করে ফেলে।

তার পরেই মহিলার বাড়ির লোকজন বাপ্পাকে বেদম প্রহার করে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। অভিযুক্ত বাপ্পা সরকার আদৌ মেডিক্যাল স্টাফ নয়। তা সত্ত্বেও সে কীভাবে একজন রোগীকে চিকিৎসা করতে রাত্রিবেলায় কেবিনে ঢুকে যায় তা নিয়ে নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে মহিলার বাড়ির লোক। অবিলম্বে গোটা বিষয়টার উপর প্রসাশনিক হস্তক্ষেপ দাবি করেছে স্থানীয় বাসিন্দারা।

News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন প্রথম কলকাতা অ্যাপ

Categories