Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

বিলম্বিত বোধদয় ! ‘বিজেমূল’ তত্ত্ব এবার কি ঝেড়ে ফেলতে চলেছে লাল পার্টিরা ?

1 min read

।। ময়ুখ বসু।।


বিজেমূল শ্লোগান এবার অতীত হতে চলছে বঙ্গ বামফ্রন্টে। আলিমুদ্দিন স্ট্রিট এবার দলের নিচুতলার নেতাকর্মীদের কাছে বার্তা পাঠাচ্ছে বিজেপি ও তৃণমূলকে আর এক আসনে বসিয়ে আক্রমণ করা যাবে না। সেইসঙ্গে বিজেমূল শ্লোগান এখন থেকে আর তোলা যাবে না। ২০২১ সালে বাংলায় ধুয়ে মুছে সাফ হয়ে যাওয়ার পর এবার ফের ধারাপাত থেকে শুরু করতে চাইছে বঙ্গ বামফ্রন্ট। আগামী কাল ৫ আগষ্ট প্রয়াত সিপিএম নেতা মুজফ্ফর আহমেদের (কাকবাবু) জন্মদিনে পাঠচক্রের আয়োজন করেছে সিপিএম। সেখানে সমস্ত শাখা সংগঠনকে নিয়ে বসার পরিকল্পনা করেছে নেতৃত্ব। এই পাঠচক্রের অনুষ্ঠানে আলোচনার বিষয়বস্ত নির্ধারিত হয়েছে, বাংলায় একুশের নির্বাচনোত্তর পরিস্থিতি ও আমাদের কাজ’। এই অনুষ্ঠানে মূলত আলোচনা হবে বিধানসভা ভোট পরবর্তী পরিস্থতিতে সংগঠনকে কীভাবে এবং কোন পন্থায় এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যাবে। সেক্ষেত্রে বঙ্গ বামফ্রন্ট চাইছে, বিজেপির সঙ্গে অন্য রাজনৈতিক দলকে এক সুত্রে মিশিয়ে না ফেলতে। এই আলোচনার জন্য শাখা কমিটিগুলির কাছে একটি নোট পাঠানো হয়েছে। সেখানে উল্লেখযোগ্য তৃণমূল ও বিজেপির সমমূল্যায়ন আর নয় বলেই জানানো হয়েছে।

বঙ্গ বামফ্রন্ট মনে করছে, বিজেপি ও তৃণমূলের বিষয়ে পার্টির অবস্থান নিয়ে কিছু স্লোগানে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়েছে। যারমধ্যে বিজেমুল ছিলো অন্যতম। বিজেপি ও তৃণমূলকে একই আসনে বসিয়ে প্রচার চালানো যে মানুষ ভালোভাবে নেয়নি তা একুশের ভোট ফলাফলে স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে। ফলে এখন থেকে বিজেপি ও তৃণমূলের মোকাবিলা পৃথকভাবে করতে চাইছে বামফ্রন্ট। সিপিএম মনে করে, বিজেপিকে পরিচালনা করে ফ্যাসিবাদী শক্তি রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সংঘ বা আরএসএস। ফলে বিজেপির মোকাবিলা এখন থেকে আলাদাভাবে করতে চায় তারা। সেক্ষেত্রে অন্য কোনও দল বিশেষ করে তৃণমূলের সঙ্গে বিজেপিকে মিশিয়ে ফেলতে রাজি নয় তারা। সিপিএম উল্লেখ করেছে, এখন থেকে বিজেমূল জাতীয় স্লোগান বা বিজেপি ও তৃণমূল একই মুদ্রার এপিঠ আর ওপিঠ জাতীয় বক্তৃতা আর চলবে না। এর ফলে বাংলার মানুষের মধ্যে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হচ্ছে।

রাজনৈতিক পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে সিপিএম মনে করছে, তৃণমূল প্রতিষ্ঠান বিরোধী হাওয়াকে মূলত সামলে নিয়েছে তাদের নানা জনমুখী প্রকল্পের মাধ্যমে। অন্যাদিকে, বাংলার মানুষ বিজেপির দখলদারি মানসিকতাকে মেনে নেয়নি। ফলে এখন থেকে বিজেপি তৃণমূলকে এক করে আর লড়াই করা যাবে না। বিজমূল শ্লোগান তোলাও যাবে না। এমনকি সিপিএম এতোদিন ধরে যে ভাবনা নিয়ে চলতো তৃণমূল ও বিজেপির মধ্যে গোপন গাঁটছড়া রয়েছে সেই ভাবনা ২০১৯ সালের লোকসভা ভোট ও ২০২১ সালের বিধানসভা ভোট প্রমাণ করে দিয়েছে তাদের মধ্যে গড়াপেটা নেই। তাই এখন থেকে তৃণমূল ও বিজেপিকে আর এক পাল্লায় তুলে আক্রমণ নয়।

News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন প্রথম কলকাতা অ্যাপ