নারদকান্ড,মুকুল সহ তৃণমূল নেতাদের নোটিশ

।। রাজীব ঘোষ।।

নারদ কান্ডে অভিযুক্তদের নোটিশ পাঠিয়েছে এনফর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। জানা গিয়েছে কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায় কে বাদ দিয়ে নারদ কান্ডে বাকি অভিযুক্তদের নোটিশ পাঠিয়েছে ইডি। নারদ কান্ডে অভিযুক্ত হয়েছেন তৃণমূল সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার, সাংসদ সৌগত রায়, মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, সাংসদ অপরুপা পোদ্দার, মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়, বর্তমানে বিজেপি নেতা মুকুল রায়, আই পি এস এস এম এইচ মির্জা, প্রাক্তন মন্ত্রী মদন মিত্র, মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারি সহ বেশ কয়েকজন তৃণমূল নেতা ।

নারদ স্টিং অপারেশনে যাদের দেখা গিয়েছে তাদের সাত বছরের সম্পত্তির হিসেব ও আয় ব্যয়ের হিসাব চেয়েছে ইডি। লোকসভা নির্বাচনের পরে নারদ কেলেঙ্কারির তদন্ত কিছুটা হলেও থেমে গিয়েছিল। সিবিআইয়ের বেশ কয়েকজন আধিকারিক বদলি হয়ে গিয়েছিলেন। কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায় বাদে বাকি 12 জনকে ইমেইল মারফত নোটিশ পাঠানো হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। শোভন চট্টোপাধ্যায়ের কাছ থেকে সম্পত্তির নথি সংগ্রহ করা হয়ে গিয়েছে।

তাই তাকে আর ডাকা হয়নি। আগামী 31 জুলাই এর মধ্যে সম্পত্তি সংক্রান্ত তথ্য চাওয়া হয়েছে। নারদ কাণ্ডের তদন্তে আধিকারিকরা স্টিং অপারেশনের ফুটেজে যাদের টাকা নিতে দেখেছেন তারা কত টাকা নিয়েছিলেন কেন টাকা নিয়েছিলেন সেই বিষয়ে এতদিন ধরে তদন্ত করছিলেন। তবে এখন নতুন করে অভিযুক্তদের আয়ের উৎস এবং সম্পত্তির তালিকা চাওয়া হয়েছে বলে সূত্রের খবর। অভিযুক্তদের প্রত্যেকেরই বেনামী সম্পত্তি ও আয় বহির্ভূত সম্পদ আছে বলে জানতে পেরেছেন তদন্তকারীরা।

গত সাত বছরে তাদের কি আয় ছিল তাদের পরিবারের বাকি সদস্যদের আয় কোথায় কি সম্পত্তি রয়েছে সেই সমস্ত ব্যাপারে বিস্তারিত তালিকা জমা দিতে বলা হয়েছে। কলকাতা পুরসভার প্রশাসক এবং রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম প্রতিহিংসার রাজনীতি বলে অভিযোগ করেছেন। ফলে ফের অস্বস্তিতে পড়ল শাসক তৃণমূল। বেশ কিছুদিন পরে ইডির পক্ষ থেকে নারদা কাণ্ডে অভিযুক্ত তৃণমূল নেতাদের নোটিশ পাঠানো হয়েছে। তবে এর সঙ্গে বর্তমানে বিজেপি নেতা মুকুল রায়কেও নোটিশ দেওয়া হয়েছে। বর্তমান পরিস্থিতিতে এটা যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।