চট্টগ্রামে অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রম শুরু ২৫ আগস্ট

।।চট্টগ্রাম ব্যুরো, বাংলাদেশ ।।

বাংলাদেশের চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হতে যাচ্ছে আগামী ২৫ আগস্ট (মঙ্গলবার) থেকে।রবিবার (২৩ আগস্ট) এ তথ্য দেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) এজেডএম শরীফ হোসেন।

তিনি বলেন, করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবজনিত পরিস্থিতিতে জেলা প্রশাসন, চট্টগ্রাম জেলার নিম্নমাধ্যমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের (৬ষ্ঠ থেকে দশম পর্যন্ত) শিক্ষার্থীদের জন্য অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রমের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।

তিনি আরও বলেন, নগরের সরকারি ও বেসরকারি স্কুলের শিক্ষকরা এ অনলাইন ক্লাস কার্যক্রম পরিচালনায় সহযোগিতা করবেন। জুম প্লাটফর্মে এ অনলাইন ক্লাসসমূহ পরিচালিত হবে যা চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের ওয়েব পেইজ এবং এই ফেসবুক পেইজে সরাসরি দেখা যাবে।

আগামী ২৫ আগস্ট বিকেল ৩টায় অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের নিয়ে এ কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করবেন চট্টগ্রাম জেলার জেলা প্রশাসক মো. ইলিয়াস হোসেন।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে গত ৮ মার্চ প্রথম করোনা ভাইরাস সংক্রমণ শনাক্তের পর ১৭ মার্চ সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়৷ ভাইরাসের প্রকোপ বাড়তে থাকায় রোগ নিয়ন্ত্রণে গত ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে সরকার৷ বন্ধ হয়ে যায় সব অফিস আদালত৷ গণপরিবহন চলাচলও সম্পূর্ণ বন্ধ করে দেওয়া হয়৷ তারপর একে একে পাঁচ দফায় ছুটির মেয়াদ বাড়ানো হয়৷ সাধারণ ছুটির সঙ্গে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের সময়ও বাড়তে থাকে৷

গত ১ এপ্রিল থেকে নির্ধারিত এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা স্থগিত হয়ে যায়৷ আটকে আছে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশও৷শিক্ষা প্রতিষ্ঠান টানা বন্ধ থাকায় পাঠদানের ধারাবাহিকতা রাখতে ২৯ মার্চ থেকে সংসদ টিভিতে ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির ক্লাস দেখানো শুরু করে সরকার৷ আর প্রাথমিকের ক্লাস শুরু হয় গত ৭ এপ্রিল থেকে৷

এই ক্লাসের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের বাড়ির কাজ দেওয়া হচ্ছে৷ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার পর সংশ্লিষ্ট শিক্ষককে এসব বাড়ির কাজ দেখাতে হবে৷ মাধ্যমিকের শিক্ষার্থীদের বাড়ির কাজের উপর প্রাপ্ত নম্বর তাদের ধারাবাহিক মূল্যায়নের অংশ হিসেবে বিবেচিত হবে৷ এছাড়া, বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো অনলাইনে পাঠদান কার্যক্রম চালু করেছে৷