করোনায় চল্লিশের বেশি বয়সের মানুষ বিপজ্জনক

1 min read

।। মনির ফয়সাল, চট্টগ্রাম, বাংলাদেশ ।।


দেশে প্রতিদিন বাড়ছে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। একইসঙ্গে বাড়ছে মৃত্যুসংখ্যাও। মৃত ব্যক্তিদের অধিকাংশই আবার চল্লিশের বেশি বয়সের মানুষ। অন্যদিকে নারীর তুলনায় কয়েকগুণ বেশি পুরুষ রোগীর মৃত্যুহার।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তরুণদের মধ্যে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তুলনামূলক বেশি থাকে। যে কারণে আক্রান্ত হলেও অনেকেই দ্রুত সেরে উঠছেন। সেদিক বিবেচনায় চল্লিশোর্ধ বয়সের মানুষের মধ্যে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা থাকে অনেক কম। আবার অনেকের শরীরেই বাসা বেঁধে থাকে নানারকম অসুখ। তাই করোনায় অপেক্ষাকৃত বয়স্ক মানুষের মৃত্যু হচ্ছে বেশি।

অন্যদিকে এদেশে জনসংখ্যার দিক থেকে নারী-পুরুষের মধ্যে প্রায় সমতা থাকলেও করোনায় পুরুষ রোগীই মারা যাচ্ছেন বেশি। এক্ষেত্রে পুরুষদের মধ্যে প্রয়োজনে-অপ্রয়োজনে ঘর থেকে বের হওয়ার প্রবণতাকেই দুষছেন বিশেষজ্ঞরা। তাছাড়া এখনও দেশে কর্মজীবী নারীর তুলনায় পুরুষের সংখ্যা বেশি, তাই পুরুষদের ঘরে থেকে বেরুতেও হচ্ছে বেশি। যার প্রভাব দেখা যাচ্ছে আক্রান্ত ও মৃত্যুসংখ্যার পরিসংখ্যানে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে প্রাপ্ত গত পাঁচদিনের পরিসংখ্যান পর্যালোচনা করে দেখা যায়, এ সময়ে (২৯ জুন-৩ জুলাই) দেশে মোট ২৩০ জন করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির মৃত্যুর খবর মিলেছে। মৃতদের মধ্যে ১৯০ জন পুরুষ এবং ৪০ জন নারী। যাদের মধ্যে ২০৬ জনেরই বয়স চল্লিশের উপরে।

অন্যদিকে চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন কার্যালয়ে থেকে ২৬ জুন পর্যন্ত প্রাপ্ত পরিসংখ্যানে দেখা যায়, ওই দিন পর্যন্ত চট্টগ্রামে মোট ১৬০ জন করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির মৃত্যুর খবর মিলেছে। মৃতদের মধ্যে ১৩৬ জন পুরুষ এবং ২৪ জন নারী। যাদের মধ্যে ১৩৭ জনেরই বয়স চল্লিশের উপরে।

বিশেষজ্ঞের বক্তব্য

এ ব্যাপারে কথা হয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কোয়ারেন্টাইন ম্যানেজম্যান্টের যুগ্ম ফোকাল পারসন ডা. মো. আজিজুর রহমান সিদ্দিকীর সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘করোনা শুধু যে ফুসফুসে ধরে তা নয়, শরীরের অন্য জায়গা দুর্বল পেলে সেখানেও চলে যায়, আক্রমণ করে। বয়স্ক ব্যক্তিদের মধ্যে ডায়াবেটিস, হার্টের রোগ, কিডনির রোগ, ব্লাড প্রেশার, স্ট্রোকসহ নানারকম রোগ থাকে। তাই তাদের শরীরের রোগাক্রান্ত অংশে করোনার আক্রমণও হয় বেশি। বয়স্ক মানুষদের মধ্যে অনেকে আবার দীর্ঘদিনের ধূমপায়ী। সবমিলিয়ে তাদের ভাইরাসটি এত জায়গায় আক্রমণ করে যে, তারা সহজেই করোনায় কাবু হয়ে যান।’

তিনি বলেন, ‘এছাড়া বয়স্ক মানুষদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও তুলনামূলক কম। একজন তরুণ যেভাবে করোনার ধকল সামলাতে পারেন, বয়স্ক ব্যক্তি সেভাবে পারেন না। এটাও করোনায় অপেক্ষাকৃত বেশি বয়সের মানুষের মৃত্যুর অন্যতম কারণ হতে পারে।’

নারী ও পুরুষের মধ্যে মৃত্যুসংখ্যায় ব্যবধান থাকার বিষয়টিতে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, ‘সারা পৃথিবীতেই এমনটা হচ্ছে। আমরা পর্যালোচনা করে দেখেছি যে, দেশে মারা যাওয়া করোনা রোগীদের মধ্যে ৮০ শতাংশই পুরুষ।’

এর কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘আমরা গবেষণা করে দেখেছি যে, মহিলাদের শরীরে কিছু হরমোন থাকে। এসব হরমোন রোগ প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। আবার পুরুষের তুলনায় নারীরা ধূমপান করেন কম। এটাও একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।’

‘এছাড়া নানা কারণে নারীর তুলনায় পুরুষদের বেশি ঘরের বাইরে যেতে হচ্ছে। তাই করোনা ঝুঁকি, আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যাতেও পুরুষদের সংখ্যাই তুলনামূলক বেশি। সোজা কথায় করোনা পরিস্থিতিতে যে যত ঘরে থাকবেন, তত নিরাপদ থাকবেন। এটাই আসল বিষয়,’ যোগ করেন তিনি।

গত দিনের পরিসংখ্যান

দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের পর থেকে প্রতিদিন দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনে সর্বশেষ করোনা পরিস্থিতি জানান হয়। সেখানে প্রাপ্ত তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, দেশে করোনা আক্রান্ত মৃত ব্যক্তিদের সিংহভাগই চল্লিশের বেশি বয়সের মানুষ। অন্যদিকে নারী-পুরুষের মৃত্যুসংখ্যার ব্যবধানও চোখে পড়ার মতো।

শুক্রবার (৩ জুলাই) দুপুরের অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনে জানান হয়, আগের ২৪ ঘণ্টায় মৃত ৪২ জনের মধ্যে ৩২ জন পুরুষ ও ১০ জন নারী। এরমধ্যে ৩৭ জনই চল্লিশোর্ধ।

মৃতদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে তিন জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে সাত জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ১১ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ১১ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে পাঁচ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে এক জন, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে তিন জন ও ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে এক জন রয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) দুপুরের অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনে জানান হয়, আগের ২৪ ঘণ্টায় মৃত ৩৮ জনের মধ্যে ৩২ জন পুরুষ ও ছয়জন নারী। এরমধ্যে ৩৫ জনের বয়সই চল্লিশের উপরে।

মৃত ব্যক্তিদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে দুই জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে সাতজন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে আটজন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ১৬ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে দুইজন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে দুইজন এবং ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে রয়েছেন একজন।

বুধবার (১ জুলাই) দুপুরের অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনে জানান হয়, আগের ২৪ ঘণ্টায় মৃত আরও ৪১ জনের মধ্যে ৩৮ জন পুরুষ ও তিনজন নারী। এরমধ্যে ৩৭ জনের বয়সই চল্লিশের উপরে।

মৃতদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ৯১ থেকে ১০০ বছরের মধ্যে একজন, ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে একজন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে সাতজন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ১১ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ১২ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে পাঁচজন ও ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে চারজন।

মঙ্গলবার (৩০ জুন) দুপুরের অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনে জানান হয়, দেশে আগের ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ৬৪ জনের মধ্যে ৫২ জন পুরুষ ও ১২ জন নারী। এরমধ্যে ৫৭ জনই চল্লিশোর্ধ।

মৃতদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে তিনজন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে ১১ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ১৬ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ২১ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ছয় জন ও ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে সাতজন রয়েছেন।

সোমবার (২৯ জুন) দুপুরের অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনে জানান হয়, আগের ২৪ ঘণ্টায় মৃত ৪৫ জনের মধ্যে ৩৬ জন পুরুষ ও নয় জন নারী।

মৃতদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ৯১ থেকে ১০০ বছরের মধ্যে এক জন, ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে এক জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে ছয় জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ১৪ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ১১ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে সাত জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে তিন জন ও ২১ থেকে থেকে ৩০ বছরের মধ্যে দুই জন।

চট্টগ্রামেও প্রায় একই চিত্র

বয়স ও লিঙ্গভিত্তিক মৃত্যুহার বিবেচনায় প্রায় একই চিত্র চট্টগ্রামেও। চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে পাওয়া গেছে ২৬ জুন পর্যন্ত বিস্তারিত পরিসংখ্যান। ওই দিন পর্যন্ত সিভিল সার্জন কার্যালয়ের হিসাবে চট্টগ্রাম জেলায় মোট ১৬০ জন করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির মৃত্যু হয়। মৃতদের মধ্যে ১৩৬ জন পুরুষ ও ২৪ জন নারী।

মৃতদের বয়স পর্যালোচনায় দেখা যায়, মৃত ব্যক্তিদের মধ্যে ১ থেকে ১০ বছর বয়সের এক জন ছেলেশিশু ও এক জন মেয়েশিশু, ১১ থেকে ২০ বছর বয়সের তিন জন নারী, ২১ থেকে ৩০ বছর বয়সের চার জন পুরুষ ও একজন নারী, ৩১ থেকে ৪০ বছর বয়সের সাত জন পুরুষ ও ছয় জন নারী, ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সের ২৩ জন পুরুষ ও পাঁচ জন নারী, ৫১ থেকে ৬০ বছর বয়সের ৩৪ জন পুরুষ ও ১২ জন নারী এবং ৬১ বছরের উর্ধ্বে ৫৫ জন পুরুষ ও আট জন নারী রয়েছেন। প্রসঙ্গত, সর্বশেষ ৩ জুলাই (শুক্রবার) পর্যন্ত চট্টগ্রামে মোট ১৮৭ জন করোনা আক্রান্ত রোগীর মৃত্যুর খবর জানিয়েছে সিভিল সার্জন কার্যালয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *